সিলেট ক্যাবল টিভি ফিড অপারেটর সমিতি’র জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৫:২৪ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২০

সিলেট ক্যাবল টিভি ফিড অপারেটর সমিতি’র জরুরী সভা অনুষ্ঠিত

সানডে সিলেট ডেস্ক: সোমবার, ১৮ মে ২০২০ : সিলেটের একমাত্র ক্যাবল সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান সিলেট ক্যাবল সিস্টেমস (প্রা.) লিমিটেড (এসসিএস)-এর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার বিষয়বস্তু নির্ধারণের জন্য ১৭ মে ২০২০ রবিবার রাতে এক জরুরী সভায় মিলিত হন ’সিলেট ক্যাবল টিভি ফিড অপারেটর সমিতি’র সদস্যরা। খাদিমপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আফছর আহমেদের বাসভবনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসসিএস-এর সাথে আলোচনা করার জন্য ’সিলেট ক্যাবল ফিড অপারেটর সমিতি’র ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সদস্য সহ সাধারণ সদস্যগন সভায় যোগ দেন। এ সময় সভার খবর পেয়ে বেশ কয়েকজন সংবাদকর্মী সেখানে উপস্থিত হন।

 

উল্লেখ্য, অস্বাভাবিক হারে ফিড বিল বৃদ্ধি, ফিড বিল নীতিমালা না থাকা সহ তিন দফা দাবিতে একজোট হওয়া সিলেটের ক্যাবল ফিড অপারেটরগন বেশ কিছুদিন ধরে এসসিএস-এর বিরুদ্ধে আন্দোলন করে যাচ্ছেন। এক প্রশ্নের জবাবে বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. সামস্ উদ্দিন সামস্  জানান, ইতিমধ্যে এসসিএস-এর পক্ষ থেকে আলোচনার প্রস্তাব পাওয়া গেছে।

 

এই আলোচনা ঈদের পর পরই অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে।সভায় আন্দোলনরত বিভিন্ন নেটওয়ার্ক-এর সত্ত্বাধিকারীগন বক্তব্য রাখেন। বক্তারা এসসিএস-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, সরকার যখন ক্যাবল সেবাকে জরুরী খাত হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন তখন এসসিএস জনবল সংকটের কথা বলে দর্শকদের এই সেবা থেকে বঞ্চিত করছে। গতকাল এবং আজ বিভিন্ন নেটওয়ার্কের ক্যাবল সিগনাল বন্ধ ছিল। অথচ লকডাউন পরিস্থিতিতে হাজার হাজার দর্শকের একমাত্র বিনোদন মাধ্যম ক্যাবল টিভির কারিগরি সমাস্যাগুলো দ্রুততম সময়ে মধ্যে এসসিএসকে সমাধান করার কথা। অন্তত দশটি নেটওয়ার্কের সিগন্যাল চব্বিশ ঘণ্টার বেশী সময় ধরে বন্ধ ছিল।

 

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চারটি নেটওয়ার্কের সিগন্যাল বন্ধ রয়েছে। ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে এসসিএস অফিসে সাংবাদিকরা ফোন করলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কেউ নেই বলে জানিয়ে দেয়া হয়। বিভিন্ন নেটওয়ার্ক বন্ধের কথা জানতে চাইলে কাজ চলছে বলে জানানো হয়।সন্দেহ প্রকাশ করে এডভোকেট আফসর আহমদ বলেন, দর্শকদের জিম্মি করে এসসিএস তাদের আন্দোলনকে বানচাল করার চেষ্টা করছে। আর যদি তা করা হয়ে থাকে তাহলে পরিস্থিতি হবে ভয়াবহ। তিনি বলেন, আলোচনার একটি পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আমরা আলোচনায় বসতে সম্মত এবং এর জন্য সময় চেয়েছি। আমাদের দাবী না মানার কোন কারণ দেখিনা। ঈদের পর সুন্দর একটা সমাধান হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। সভায় (এসসিএস)-এর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার বিভিন্ন কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়। ২২ মে শুক্রবার সমিতির পরবর্তী সভা আহবান করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ

ই-মেইল :Sundaysylhet@Gmail.Com
মোবাইল : ০১৭১১-৩৩৪২৪৩ / ০১৭৪০-৯১৫৪৫২ / ০১৭৪২-৩৪৬২৪৪
Designed by ওয়েব হোম বিডি