সিলেটে ৪ মাস ধরে ভাতা পাচ্ছেন না ৫০ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার

প্রকাশিত: ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ, মে ২৬, ২০২১

সিলেটে ৪ মাস ধরে ভাতা পাচ্ছেন না ৫০ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক:: দীর্ঘ ৪ মাসের অধিক সময় থেকে ভাতা পাচ্ছেন না সিলেট মহানগরের ৫০ এর অধিক মুক্তিযোদ্ধা ও পরিবারবর্গ। গত কয়েক মাস থেকে ব্যাংকের দাড়স্ত হচ্ছেন তারা, কিন্ত অজানা কারণে পাচ্ছেন না ভাতা।

 

মঙ্গলবার (২৫ মে) অনেক আশা নিয়ে ব্যাংকের দারস্থ হলেও শূণ্য হাতে ফিরতে হয়েছে তাদের। এতে করে নানাবিদ সমস্যার দায়ে প্রতিনিয়ত ভোগান্তিতে পড়েছেন দেশ সৈনিক পরিবারগুলোকে।

এ নিয়ে কয়েকজন বীরমুক্তিযোদ্ধা অভিযোগ করে বলেন, প্রায় ৪ মাস যাবত আমরা সিলেট মহানগর শাখার ৫০ এর অধিক মুক্তিযোদ্ধারা ভাতা কোন কারণ ছাড়াই পাচ্ছি না। এর মধ্যে অনেকের ভারতীয় তালিকা সহ অন্যান্য তালিকায় নাম রয়েছে। সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের বেতন, ভাতা, বৈশাখী ভাতা ও ঈদ বোনাস প্রদান করা হয়। কিন্তু অজানা কারনে সিলেটের মুক্তিযোদ্ধারা এসব ভাতা থেকে বঞ্চিত। এছাড়াও ব্যাংক থেকে ঋণ গ্রহণ করেছেন মুক্তিযোদ্ধার কয়েকজন পরিবারগুলো, আর ভাতা না পাওয়ার কারনে ব্যাংকের সুদ ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর অভাবে মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে তাদের।

 

 

মহামারি করোনাকালে মুক্তিযোদ্ধা এই পরিবারগুলো কোন ধরনের ত্রাণ সামগ্রী পায় নি। বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ও ব্যাংকে বার বার দারস্ত হলেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না। ফলে শূণ্য হাতেই ফিরতে হচ্ছে তাদেরকে। তারা আরো বলেন, বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার আমলে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারগুলোকে যেসব সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। যা কোন সরকারের বেলায় তা হয়নি। এই সমস্যা থেকে প্রতিকার পেতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারগুলো।

 

এসময় ব্যাংকের সামনে প্রতিকার পেতে অপেক্ষা প্রহর গুণতে হচ্ছে- বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নীল বাবু সিংহের সহধর্মিনী আনন্দিনী সিনহা, বীর মুক্তিযোদ্ধা বিপুল চন্দ্র দাশের সহধর্মিনী শিপ্রা দাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত দিলীপ কুমার সিংহের সহধর্মিনী সীমা কাংজিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত দেবাশিষ মজুমদারের সহধর্মিনী কৃষ্ণ মুজমদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত দিপেন্দ্র মোহন দাশের সহধর্মিনী ছায়া রানী দাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত সেকান্দর আলীর সহধর্মিনী শাহিদা বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত অজয় কুমার শর্ম্মার সহধর্মিনী সবিতা শর্ম্মা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত করুণায়ময় পালের সহধর্মিনী জবা পাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত আব্দুল মনাফের সহধর্মিনী রোকেয়া বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত খলিল উল্লাহ সহধর্মিনী মাহমুদা খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত মুসলিম আলীর ছেলে মো. লাল মিয়া, মৃত আমির হোসেনের সহধর্মিনী অহিদা বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত অনিল সিংহ বর্মনের সহধর্মিনী অধীর সিংহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত অনিল সিংহ বর্মনের ছেলে অধীর সিংহ বর্মন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত বদর উদ্দিন আহমদের সহধর্মিনী নুরজাহান বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত আব্বাস উদ্দিন মনু মিয়ার সহধর্মিনী ফুলবান বিবি, মরহুম মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশারের স্ত্রী শাহারা বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত দেওয়ান আবরার হোসেন চৌধুরীর সহধর্মীনি শিরিন চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বামী মৃত আবুল কালামের সহধর্মীনি সান্তা কালাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত স্বামী শ্রী চন্দ তালুকদারে সহধর্মীনি খেলা রানি তালুকদার প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ