স্পেশাল

শিববাড়িতে চোখ উপড়ে ফেলে কিশোরকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত: ৮:৩২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০২০

শিববাড়িতে চোখ উপড়ে ফেলে কিশোরকে হত্যার অভিযোগ

সানডেসিলেটডটকমঃ সিলেটের দক্ষিণ সুরমার জৈনপুর এলাকায় শরীরে ইট, পাথর দিয়ে আঘাতের পর চোখ উপড়ে ফেলে জহিরুল ইসলাম (১৬) নামে এক কিশোরকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। তবে হাসপাতালে ভর্তির সময় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বলে তাকে ভর্তি করা হয়। এ নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।

পরিবারের দাবি, গত ২৬ অক্টোবর সোমবার সন্ধ্যায় মাদক ব্যবসায়ীদের হামলার শিকার হন ওই কিশোর। বুধবার (২৮ অক্টোবর) ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত জহিরুল ইসলাম সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা থানার সিরাই গ্রামের নজরুল মিয়ার ছেলে। পেশায় রং মিস্ত্রির কাজ করত। বর্তমানে পরিবার নিয়ে কদমতলী জেসমিন ভিলায় ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করে।

পরিবার জানায়, গত কয়েকদিন আগে জৈনপুর হাওরের বাড়ী এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল নিহত জহিরুল ইসলামকে তার সাথে খুঁচরা মাদক ব্যবসায় জড়িত হতে বলে। তাতে রাজি হয়নি জহিরুল। বিষয়টি জহিরুল তার পিতা-মাতাকে জানায়। এমন ব্যবসায় জড়িত না হতে জহিরকে নিষেধ করেন। কিশোর জহিরুলবিষয়টি জনৈক ব্যক্তির সাথে আলাপ করলে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলাম জানতে পেরে জহিরুলে উপর ক্ষেপে যায়।

গত ২৬ অক্টোবর সোমবার সন্ধ্যা ৭ টায় জহিরুল বাসা থেকে পূজার অনুষ্ঠান দেখতে বের হলে শিববাড়ী এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী ফখরুলের সাথে দেখা হয়। এসময় অন্যকে জানানোর জের ধরে জহিরুলের সঙ্গে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন ফখরুল। এক পর্যায়ে ফখরুল তার সঙ্গী সাথীদের নিয়ে জহিরকে জৈনপুর হাওর বাড়ী এলাকায় নির্জন স্থানে নিয়ে শরীরে ইট, পাথর দিয়ে আঘাত করে মারাত্মক জখম করে এবং চোখ উপড়ে ফেলে গুরুতর আহত করলে অজ্ঞান হয়ে মাটিয়ে পড়ে যান জহিরুল। এসময় হামলাকারীরা তাকে মৃত ভেবে চলে যায়।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ তিনি মারা যান।

আহত কিশোরের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করে মোগলবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম বলেন, সোমবার রাতে এক অটোরিকশা চালক জহিরুলকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করে দিয়ে যায়। জহিরুল সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে বলে ভর্তির সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, মাদক ব্যবসায়ীরা মারধর করে জহিরুলকে গুরুতর আহত করে। এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্টূ পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

তবে নিহতের ভাই দীন ইসলামের অভিযোগ, গত সোমবার সন্ধ্যায় জৈনপুর এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলামের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে জহিরুল ইসলামকে আহত করা হয়। মাদক ব্যবসায়ী রাজী না হওয়ায় এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ তার।

মারধরের পর হামলাকারীরা পালিয়ে গেলে স্থানীয়রা জহিরুলকতে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন বলে জানিয়েছেন দীন ইসলাম।

 

 

সূত্রঃ জনতার সিলেট

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ