স্পেশাল

লায়ন্স শিশু হাসপাতালের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্টিত

প্রকাশিত: ৫:০৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

লায়ন্স শিশু হাসপাতালের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্টিত
সানডে সিলেট ডেস্ক: শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০ : স্বল্প খরচে চিকিৎসা প্রদানের মাধ্যমে মানসম্মত সেবা প্রদান করে আসছে লায়ন্স শিশু হাসপাতাল। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ হাসপাতাল সবার সাধ্যের মধ্যে সাশ্রয়ী চিকিৎসা সেবাও প্রদান করছে। যে কারণে বাণিজ্যের এ যুগেও লায়ন্স শিশু হাসপাতাল একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান হিসেবেই সকলের কাছে আস্থা অর্জন করতে পেরেছে। আগামীতে এ প্রতিষ্ঠান সেবার মান অক্ষুন্ন রাখতে কাজ করবে। লায়ন্স শিশু হাসপাতালের বার্ষিক সাধারণ সভায় এ তথ্য জানানো হয়। হাসপাতালের ২০১৮-১৯ বছরের বার্ষিক সাধারণ সভা গতকাল শুক্রবার রাত ১০টায় নগরীর মানিকপীর রোড় কুমারপাড়াস্থ লায়ন্স শিশু হাসপাতালের  হল রুমে অনুষ্ঠিত হয়।
হাসপাতালের চেয়ারম্যান লায়ন জহির বক্ত-এর সভাপতিত্বে বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লায়ন্স ক্লাবের জেলা ৩১৫ বি-১ এর সাবেক জেলা গভর্ণর ডা. আজিজুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লায়ন ডা. এম এ মতিন, লায়ন ডা. শামীমুর রহমান,জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী।
লায়ন্স শিশু হাসপাতালের সহকারী ব্যবস্থাপক লাভলী ইসলামের পরিচালনায় লায়ন্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক লায়ন মুহিতুর রহমানের কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন লায়ন ডা. শামীমুর রহমান। পরে বিগত সাধারণ সভার কার্যবিবরণী পাঠ ও অনুমোদন করান সাবেক সেক্রেটারি লায়ন ইমরান আহমদ । এছাড়া ২০১৮-১৯ বছরের প্রতিবেদন উপস্থাপন ও অনুমোদন করান হাসপাতালের সেক্রেটারি লায়ন ডা. সোলাইমান আহমদ ও ট্রেজারার রিপোর্ট পেশ করেন লায়ন জোবায়ের আহমদ চৌধুরী (এম.জে.এফ)।
সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘২০১১ সাল থেকে আধুনিক ও সম্প্রসারিত হয়ে নতুন রূপে এই হাসপাতালের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। যার ফলে রোগীর সেবা বর্ধিত কলেবরে প্রদান করা সম্ভব হয়েছে। ২০১৮-১৯ সনে হাসপাতাল থেকে সেবা নিয়েছেন ৩৯ হাজার ৬৪১ জন। যুগের সাথে চিকিৎসা উপযোগী ও রোগ নির্ণয়ের বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা ও আধুনিক চিকিৎসার সকল ব্যবস্থা থাকলে এই হাসপাতালটি হতে পারে শিশুদের জন্য একটি অন্যতম হাসপাতাল ও সিলেটের একমাত্র শিশুস্বাস্থ্যের অবলম্বন’।
কোষাধ্যক্ষের প্রতিবেদনে ট্রেজারার লায়ন জুবায়ের আহমদ চৌধুরী ২০১৮ সালের ১ জুলাই হতে ২০১৯ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত আয়-ব্যয়ের হিসাব তুলে ধরেন। বার্ষিক সাধারণ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- লায়ন্স ক্লাবের প্রেসিডেন্ট লায়ন আব্দুল হামিদ। মহিলা কাউন্সিলর শাহানারা বেগম, রোটারিয়ান এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরী, প্রবাসী কমিউনিটি নেতা মাহমুদুর রশীদ চৌধুরী, চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ, হাসপাতালের সাবেক চেয়ারম্যান লায়ন ডা.মোস্তফা শাহজাহান চৌধুরী বাহার, লায়ন নূর আহমদ, লায়ন ডা. তহুর আব্দুল্লাহ চৌধুরী, লায়ন মাহবুবুল হক, সাংবাদিক লায়ন আবু তালেব মুরাদ, লায়ন হুমায়ুন কবির, লায়ন আব্দুল্লাহ আল মামুন, লায়ন আব্দুস সাত্তার সোয়েব, লায়ন গৌতম লাল দত্ত, লায়ন শামসুল আলম খান সাজু, লায়ন মিসবাহুল ইসলাম কয়েস, প্রবাসী আব্দুল আহাদ, লায়ন আফতাব আহমেদ প্রমুখ।
বিশেষ মতামত দেন হাসপাতালের আজীবন সদস্যরা। সভায় বিগত সাধারণ সভার কার্যবিবরণী পেশ ও অনুমোদন, সেক্রেটারি কর্তৃক বিগত বছরের প্রতিবেদন পেশ, কোষাধ্যক্ষ র্কতৃক বিগত বছরের অডিট রিপোর্ট পেশ এবং অডিটর নিয়োগ, জীবন সদস্যদের সনদ প্রদান, সম্মানিত সদস্যবৃন্দের বক্তব্য এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন, সভাপতির ভাষণ ও আপ্যায়নের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়। এছাড়া আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দসহ দাতা সদস্য, আজীবন সদস্য, লায়নবৃন্দ  হাসপাতালের কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ