মাস্টার্সসহ অন্যান্য পরীক্ষার  স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারে দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৬:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

মাস্টার্সসহ অন্যান্য পরীক্ষার  স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারে দাবিতে মানববন্ধন

 নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলমান মাস্টার্স পরীক্ষা ও অন্যান্য পরীক্ষার  স্থগিতাদেশ  প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে সিলেটের এমসি করেজের শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন,  দ্রুত রীক্ষার  স্থগিতাদেশ  প্রত্যাহার না করলে যৌক্তিক দাবী আদায়ে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনের ডাক দিবে।

 

মঙ্গলবার (২৩ই ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০টায় এমসি কলেজ (মুরারিচাঁদ কলেজ) এর প্রধান ফটকের সামনে সাধারণ ছাত্রদের ব্যানারে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

এসময় মানববন্ধনে এমসি কলেজের গণিত বিভাগের মেধাবী ছাত্র মাস্টার্স পরিক্ষার্থী আব্দুর রহিম এর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন সাবেক শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা হোসাইন আহমদ, সাবেক শিক্ষার্থী ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট এমসি কলেজের সভাপতি সাদিয়া নৌশিন তাসনিম, পঙ্কজ চক্রবর্তী, মাহফুজ হামিদ, মাস্টার্স পরিক্ষার্থী মোহাম্মদ হোসাইন, মনিরা ইয়াসমিন, আব্দুল্লাহ আল সাহেদ, সাজ্জাদ হুসেন, সৈয়দ আকমল হোসাইন, উমা সরকার, সজল মালাকার, রণি তালুকদার, তাপস সুত্রধর, আবির ইসলাম অভি, উত্তম, নির্মল, আনোয়ার হোসেন, শান্তনু সরকার সহ আরো অনেক শিক্ষার্থী। সমাপনী বক্তব্য রাখেন মাস্টার্স পরিক্ষার্থী রাকিব চৌধুরী।

 

বক্তারা জানান যে, চলমান পরীক্ষা স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে দ্রুত পরীক্ষা শেষ করা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্যাম্পাস ও ছাত্রাবাস খুলে দেওয়ার জোর দাবী জানান এবং অন্যান্য সকল পরীক্ষা দ্রুত স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু করা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের অনিশ্চয়তা থেকে মুক্ত করা।

 

উক্ত মানববন্ধনে একাত্মতা ও সংহতি প্রকাশ করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এমসি কলেজ শাখা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, ছাত্র ইউনিয়ন, অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এবং এমসি কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ।

মানববন্ধন শেষে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এমসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. সালেহ আহমদের কাছে লিখিতভাবে তাদের দাবী ও স্মারকলিপি প্রদান করেন। অধ্যক্ষ সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এটি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাবেন বলে আশ্বাস দেন।

 

উল্লেখ্য, গত সোমবার ২২ই ফেব্রুয়ারি হঠাৎ শিক্ষামন্ত্রী ২৩ই ফেব্রুয়ারি থেকে সকল পরীক্ষা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ২৩ মে পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সে অনুযায়ী তাদেরও সিদ্ধান্ত প্রদান করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ