বীর উত্তম খেতাব বাতিল সিদ্ধান্ত অনভিপ্রেত, এভাবে বিএনপিকে ধ্বংস করা যাবে না: নাসিম

প্রকাশিত: ৯:৩৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

বীর উত্তম খেতাব বাতিল সিদ্ধান্ত অনভিপ্রেত, এভাবে বিএনপিকে ধ্বংস করা যাবে না: নাসিম

সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেছেন, জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের রাজনীতির একজন আইকন। তিনি তাঁর কীর্তি ও কর্মের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাসে নিজের অমর–অক্ষয় স্থান নিশ্চিত করে গেছেন। কোনো অপচেষ্টার মাধ্যমেই তাঁকে দেশের মানুষের মন থেকে মুছে ফেলা যাবে না। মুক্তিযুদ্ধ এবং জিয়াউর রহমান এক এবং অভিন্ন। তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরের মাথায় জাতীয় মুক্তিযুদ্ধ কাউন্সিল (জামুকা) কর্তৃক জিয়াউর রহমানের রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত অনভিপ্রেত। তাঁর পরিবারকে ধ্বংস করার যে ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র চলছে, খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত এরই অংশ বলে আমরা মনে করি। এর মাধ্যমে শহীদ জিয়াকেই কেবল নয়, প্রকারান্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধকেই অবমাননা করা হয়েছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর লগ্নে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং একজন সাবেক রাষ্ট্রপতির প্রতি এ ধরনের হীন প্রতিহিংসামূলক আচরণের প্রতি কঠোর ধিক্কার জানাচ্ছি।

 

তিনি শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সিলেট মহানগর বিএনপির কর্তৃক আয়োজিত শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের বীর উত্তম খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

 

লেট মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত চৌধুরী সাদেকের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল শেষে বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, সহ সভাপতি এডভোকেট হাবিবুর রহমান হাবিব, হুমায়ুন কবির শাহীন, রেজাউল হাসান কয়েছ লোদী, সুদীপ রঞ্জন সেন বাপ্পু, বাবু নিহার রঞ্জন সেন, অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী।

 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এমদাদ হোসেন চৌধুরী, এডভোকেট আতিকুর রহমান সাবু, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতা সিদ্দিকী, মহানগর যুবদেলর আহ্বায়ক নজিবুর রহমান নজিব, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি সদস্য আব্দুল আহাদ খান জামাল, মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মুর্শেদ আহমদ মুকুল, মাহবুব চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, প্রচার সম্পাদক শামীম মজুমদার, যুব বিষয়ক সম্পাদক মির্জা বেলায়েত হোসেন লিটন, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. আশরাফ আলী, মানবাধিকার সম্পাদক মুফতি নেহাল, আপ্যায়ন সম্পাদক আফজাল উদ্দিন, সমবায় সম্পাদক মামুনুর রহমান মামুন, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক হাবিব হোসেন চৌধুরী শিলু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও মহানগর কৃষক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল জব্বার তুতু, মহানগর যুবদলের সদস্য সচিব শাহ নেওয়াজ বখত চৌধুরী তারেক, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহিদ সোহেল, সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান, মহানগর বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক খছরুজ্জামান খছরু, সহ দপ্তর সম্পাদক লোকমান আহমদ, সদস্য মখলিছ খান, আব্দুস সাত্তার মামুন, রফিকুল বারী নোমান, সোহেল আহমদ, মুরাদ খান, মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু, সাজন চৌধুরী, শেখ মোহাম্মদ সুমন, গিয়াস আহমদ, যুবদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শাহীবুর রহমান সুজান, সোহেল মাহমুদ, বেলায়েত হোসেন মোহন, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কয়েছ আহমদ, মহানগর সদস্য এমদাদুল হক স্বপন, মোজাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, মির্জা সম্রাট, উসমান গনি, মাসুক আহমদ, ইছহাক আহমদ, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জাকির হোসেন, আলী আনসার, দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী, রাশেদুল হাসান খালেদ, দেওয়ান জাকির, মুমিনুর রহমান তানীম, আবু আহমদ আনসারী, আলাউদ্দিন মনাই, মো. জাহেদ, মালেক বক্স, আফছর খান, লুৎফুর রহমান, সৈয়দ আমির আলী, সারোয়ার রেজা, কামরান হোসেন হেলাল, সালেক আহমদ, সেলিম আহমদ সেলিম, শাকি হাজারী, আজিজ খান সজিব, সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সহ সভাপতি আব্দুল করিম জোনাক, আব্দুস সালাম টিপু, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক হোসেন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল ইসলাম, জাবেদুল ইসলাম দিদার প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ