স্পেশাল

বালাগন্জে নিহত ছমির আলীর পরিবারের পাশে ভাইস চেয়ারম্যান সামস

প্রকাশিত: ২:০১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

বালাগন্জে নিহত ছমির আলীর পরিবারের পাশে ভাইস চেয়ারম্যান সামস

সানডেসিলেট প্রতিবেদক :: সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার মোরারবাজারে দু’পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে মধ্যস্থতাকালে নিহত আহমদপুর গ্রামের ছমির আলীর পরিবারকে আন্তরিক সমবেদনা জানিয়েছেন বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা সামস উদ্দিন সামস।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) বিকালে ছমির আলীর বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী, সন্তানদের সাথে সাক্ষাৎ করে তিনি এ সমবেদনা জানান।

সাক্ষাতকালে সামস উদ্দিন সামস রাজমিস্ত্রি ঠিকাদার ছমির আলীর দুঃখজনক মৃত্যুর ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি নিহত ছমির আলীর স্ত্রী ফাতেহা বেগম, দুই ছেলে ইমন আহমদ ও নাঈম আহমদসহ পরিবারের লোকজনকে সান্ত¦না জানান। এ সময় পরিবারের লোকজন ছমির আলী নিহতের ঘটনার সুষ্ঠু বিচার এবং অভিযুক্ত গ্রেফতারকৃত আসামী মছব্বির আলীর কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

সাক্ষাতকালে বালাগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন সামস ছমির আলী হত্যা মামলার সুষ্ঠু তদন্ত এবং বিচারের ব্যাপারে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। এ সময় বালাগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. জিল্লুর রহমান জিলু, দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইছরাক আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী ও বালাগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ০৬ অক্টোবর সন্ধ্যা অনুমান ৭টার দিকে উপজেলার দেওয়ান বাজার ইউনিয়নের মোরারবাজারে পাওনা টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। মোরারবাজারের আছিয়া কমিউনিটি সেণ্টার সংলগ্ন মার্কেটের চা-দোকানী স্থানীয় আহমদপুর গ্রামের মছব্বির আলী একই গ্রামের ক্রেতা পারভেজ মিয়া (৩২)’র কাছে পাওনা ২শ ২০টাকা চাইতে গেলে উভয় পক্ষে মারামারির সূত্রপাত হয়। ঘটনার এক পর্যায়ে দোকানী মছব্বির আলী পারভেজ মিয়াকে ছাতা দিয়ে মাথায় আঘাত করেন। পারভেজ রক্তাক্ত জখম হলে পারভেজের ফুফা ছমির আলী (৪৫)সহ স্থানীয়রা মধ্যস্থতা করতে আসেন। এসময় মছব্বির আলী ‘ছমির আলীর বুকে কিল, ঘুষি ও স্বজোরে লাথি’ মারেন। এরপর ছমির আলীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ডাক্তারের কাছে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরদিন গত ৭ অক্টোবর বিকালে ময়না তদন্ত শেষে সন্ধ্যায় আহমদপুর পঞ্চায়েতি কবরস্থানে ছমির আলীর দাফন সম্পন্ন হয়। ছমির আলী স্থানীয় আহমদপুর গ্রামের মৃত রইছ আলীর ছেলে। ইমন আহমদ (১৫) ও নাঈম আহমদ (১৩) নামে ছমির মিয়ার দু’টি ছেলে রয়েছে। এর মধ্যে ইমন আহমদ বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বলে জানা গেছে।

হত্যাকাণ্ডের শিকার ছমির আলীর স্ত্রী ফাতেহা বেগম বাদী হয়ে এ ঘটনায় গত ৮ অক্টোবর বালাগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। দায়েরকৃত মামলা নম্বর-০৪। ধারা ৩০২ (পেনাল কোড)। মামলার একমাত্র আসামী মছব্বির আলীকে গত ১৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

সানডেসিলেট/১৭ অক্টোবর ২০২০/রাই

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ

ই-মেইল :Sundaysylhet@Gmail.Com
মোবাইল : ০১৭১১-৩৩৪২৪৩ / ০১৭৪০-৯১৫৪৫২ / ০১৭৪২-৩৪৬২৪৪
Designed by ওয়েব হোম বিডি