স্পেশাল

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না হলে  স্বাধীনতা বিপন্ন হতে পারতঃ ডা.আরমান শিপলু

প্রকাশিত: ৫:৪৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না হলে  স্বাধীনতা বিপন্ন হতে পারতঃ ডা.আরমান শিপলু

বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের আলোচনা সভা

সানডেসিলেট ডেস্কঃ বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম সিলেট জেলা শাখার আলোচনা সভা রবিবার (১০ জানুয়ারি) রাত ৮টায় নগরীর পুরান লেনে সমবায় ভবনে অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

ফোরামের সভাপতি রুহুল ইসলাম মিঠুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহানগর আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আরমান আহমদ শিপলু বলেন, পাকিস্তানের কারাগারে ৯মাস ১৪দিন বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ১০ই জানুয়ারি সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তন করেন। তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান। সেখান থেকে বঙ্গবন্ধু দিল্লি হয়ে ঢাকায় প্রত্যাবর্তন করেন। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চের প্রথম প্রহরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষনা করে বঙ্গবন্ধু সর্বস্তরের জনগণকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিঁয়ে পড়ার আহ্বান করলে বীর বাঙালি অস্ত্র হাতে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। পাক সৈন্যদের বিরুদ্ধে জীবন দিয়ে যুদ্ধ করে বিজয় ছিনিয়ে আনে জাতি। বঙ্গবন্ধুর এই ঘোষণার অব্যবহিত পর পাক সামরিক শাসক জেনারেল ইয়াহিয়া খানের নির্দেশে বঙ্গবন্ধুকে আটক রাখা হয় পাকিস্তানের কারাগারে। চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হলে বঙ্গবন্ধু এ দিন স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন। বঙ্গবন্ধু এইদিন স্বাধীন দেশে প্রত্যাবর্তন না করলে দেশের স্বাধীনতা বিপন্ন হতে পারত। এই দিনটিকে অবিস্বরনীয় করে রাখতে প্রতিবছর বিশেষ মর্যাদায় দিবসটি সামাজিক রাজনৈতিক সাংস্কৃতিক সংগঠন পালন করে থাকে। বঙ্গবন্ধু ক্ষমতা গ্রহণের সাড়ে ৩ বছরের মাথায় পরাজিত শক্তিরা বঙ্গবন্ধু সপরিবারকে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট হত্যা করে নিকৃষ্টতম অধ্যায় শুরু করে।

 

প্রধান অতিথি বলেন, বঙ্গবন্ধু রাষ্ট্রের ক্ষমতা গ্রহণ করে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে দ্বিতীয় বিপ্লবের ডাক দিয়ে দেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত আধুনিক সোনার বাংলাদেশ গড়তে স্বপ্ন দেখেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃতীয়বারের মতো রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী হয়ে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় মধ্য আয়ের দেশে পরিণত করে জাতিকে মাতা উচু করে দাড়াবার পথ দেখিয়ে যাচ্ছেন।

 

ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহরুল ইসলাম মন্ডলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য দেন মহানগর আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ফোরামের সম্মানিত সদস্য কবি ও ছড়াকার ধ্রুব গৌতম।

 

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, ফোরামের সিনিয়র সহ সভাপতি প্রাক্তন ফটোগ্রাফার বেলাল উদ্দিন চৌধুরী, নাঈম কোরেশী পলাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম লস্কর, অর্থ সম্পাদক কবি কামাল আহমদ, সাংবাদিক আব্দুল আহাদ নিল, সিনিয়র সাংবাদিক আব্দুল মুক্তাদির, সাহেদ রহমান রাপু, শহিদ আহমদ খান, সদস্য জাহেদুল ইসলাম, ফটোগ্রাফার মীর মো. সাগর রিয়াজ প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ