স্পেশাল

বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত

প্রকাশিত: ৫:০৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৯, ২০১৭

বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত

সানডে সিলেট :  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে বাংলাদেশের সঙ্গে তুলনা করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শুধু জাতি রাষ্ট্রের স্রষ্টা না, তিনি একটি জাতির সৃষ্টি করেছেন।

সচিবালয়ে রোববার অর্থ বিভাগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় একথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশ, বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু।…বঙ্গবন্ধু শুধু জাতি রাষ্ট্রের স্রষ্টা না, একটি জাতিরও সৃষ্টি করেছেন।”

এখন বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে অনেক কিছু জানা যাচ্ছে উল্লেখ করে মুহিত বলেন, “দুই খণ্ড বই বেরিয়েছে, উনার (বঙ্গবন্ধু) বই বের হওয়ার পর থেকে উনার সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়ার সাহস অনেক কমে গেছে।

“বঙ্গবন্ধু সাধারণ পরিবারের সন্তান ছিলেন। এই মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানই আমাদের দেশটাকে গড়ে তুলেছেন।”

১৩ বছর বয়স থেকে বঙ্গবন্ধুকে চেনেন জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ওই সময়ের ছাত্রনেতা শেখ মুজিবুর রহমান ৫০০ ছাত্রকে নিয়ে সিলেট গিয়েছিলেন, তখন দেখা ও কথা বলার সুযোগ হয়।

নিজের ছাত্রাবস্থা এবং সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার পর বিভিন্ন সময়ে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাক্ষতের ঘটনাগুলো বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করেন মুহিত।

সরকারি কর্মকর্তা থাকাকালে কুমিল্লায় একটি অনুষ্ঠানে শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে দেখা হওয়ার ঘটনা তুলে ধরে মুহিত বলেন, “বঙ্গবন্ধু আমাকে বললেন, সিএসপি অফিসার হয়েছ ভালো কথা, দেশসেবা যে কোনো জায়গা থেকে, যে কোনো অবস্থান থেকে করা যায়।”

অর্থমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কখনও মাথা নত বা কম্প্রোমাইজ করেননি।

“বাইরে থেকে লোকজন এসে দেশকে শাসন করেছে। যারাই এসেছে তারাই এদেশের অধিবাসী হয়েছে, দেশের মানুষ হয়ে গেছে।…পৃথিরীর নিয়মেই তারা এদেশে এসেছেন।”

১৯৭১ সালের উত্তাল মার্চে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) স্বাধীনতার ডাক দেন শেখ মুজিবুর রহমান। তার নেতৃত্বে রক্তাক্ত সংগ্রামেই অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট সেনাবাহিনীর একদল কর্মকর্তা ও সৈনিক বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের স্থপতি, তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করে।ছয় বছরের শিশু থেকে শুরু করে অন্তঃসত্ত্বা নারীও সেদিন ঘাতকের গুলি থেকে রেহাই পায়নি।

অর্থ বিভাগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. এনামুল হকের সভাপতিতে অর্থ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. ইউনুসুর রহমান সভায় বক্তব্য দেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ