পবিত্র ইসলাম ধর্মের নামে হেফাজত ‘অপবিত্র’ কাজ করছেঃ প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৮:১৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৪, ২০২১

পবিত্র ইসলাম ধর্মের নামে হেফাজত ‘অপবিত্র’ কাজ করছেঃ প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উদযাপন উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে হেফাজতে ইসলামের চালানো তাণ্ডবের চিত্র জাতীয় সংসদে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, পবিত্র ইসলাম ধর্মের নামে সংগঠনটি ‘অপবিত্র’ কাজ করছে। সংগঠনটির নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তুলেন শেখ হাসিনা।

 

রবিবার(৫ এপ্রিল) দুপুরে সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘হেফাজতের একটি অংশের তাণ্ডবের পেছনে বিএনপি-জামায়াত জড়িত’ ।

 

শেখ হাসিনা বলেন, কওমি মাদ্রাসা ধারা প্রভাবাধীন হেফাজতে ইসলামের পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরের বিরোধিতার বিষয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, আজকে হেফাজতে ইসলাম কর্মসূচি দেয়… তারা কি দেওবন্দে যায় না শিক্ষাগ্রহণ করতে? তাই এই সমস্ত ঘটনা যদি ঘটায়, তাহলে উচ্চশিক্ষায় দেওবন্দ যাবে কীভাবে? সেটা কি তারা একবারও চিন্তা করেছে।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ২৬-৩১ মার্চ পর্যন্ত হেফাজতে ইসলামের সহিংসতা এবং ২৭-২৮ মার্চ হেফাজতের পক্ষে বিএনপি-জামায়াতের বিবৃতি ‘দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিক অংশ’।

 

সেসময় দেশের বিভিন্ন স্থানে হেফাজত-জামাত-বিএনপি মিলে আওয়ামী লীগ অফিস, দলীয় নেতাকর্মীদের বাড়িঘর, সরকারি অফিস-আদালত এবং গণপরিবহনে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে।

 

তিনি বলেন, এখন আমার প্রশ্ন? ইসলাম তো শান্তির ধর্ম। ইসলাম ধর্মের নামে এই যে জ্বালাও-পোড়াও এটা কীভাবে আসলো। তবে এটা নতুন কিছু না, ২০১৩ সালে আমরা দেখেছি এই বিএনপি-জামায়াত কীভাবে চলন্ত গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষকে পুড়িয়েছে, কীভাবে মানুষের ওপর আক্রমণ করেছে, সেগুলো আমরা দেখেছি।

 

হেফাজতে ইসলাম আগুন নিয়ে খেলছে মন্তব্য করে তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এক ঘরে আগুন লাগলে তো সেই আগুন তো অন্য ঘরেও চলে যেতে পারে। সেটা কি তাদের হিসাবে নেই? আজকে রেলস্টেশন থেকে শুরু করে ভূমি অফিস থেকে শুরু করে ডিসি অফিস থেকে শুরু করে সব জায়গায় যে আগুন দিয়ে বেড়াচ্ছে তাদের মাদ্রাসা, তাদের বাড়িঘর- সেগুলোতেও যদি আগুন লাগে তখন তারা কি করবে? জনগণ কি বসে বসে এগুলো শুধু সহ্য করবে? তারা তো সহ্য করবে না।

 

একজন মুসলমানের আরেকজন মুসলমানের জানমাল হেফাজত করা, রক্ষা করা হচ্ছে দায়িত্ব- এমনটা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, হেফাজতের নামে তারা জ্বালাও-পোড়াও করে যাচ্ছে। আর বিএনপি-জামায়াত তাদের মদদদাতা। এটা শুধু বাংলাদেশের মানুষের জন্য নয়, সমগ্র বিশ্বের জন্য লজ্জার। সমস্ত পৃথিবীর জন্য লজ্জার বিষয় এনে দিচ্ছে তারা। এটাই হচ্ছে আমাদের দুঃখ। আমাদের পবিত্র ধর্মটাকে তারা সম্পূর্ণভাবে নষ্ট করে দিচ্ছে। তাদের এই ধরনের কর্মকাণ্ডের ফলে বহু মানুষের জীবন গেছে। ২৬ মার্চ অনেক মানুষের জীবন গেছে। এজন্য দায়ী তো তারা।

বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, এধরনের অপকর্মের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে- এইটুকু আমি শুধু বলতে পারি। এর বেশি বলতে চাই না। আর আমি বলব, যারা মুখে ধর্মের কথা বলে, ইসলামের নাম বলে চলবেন, আর অধর্মীয় কাজ করবেন- এটা কখনো গ্রহণযোগ্য না।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ