জিয়া মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান ‘জয় বাংলা’ বন্ধ করে দিয়েছিলোঃ মাহবুব উল আলম হানিফ

প্রকাশিত: ১:০৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০২১

জিয়া মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান ‘জয় বাংলা’ বন্ধ করে দিয়েছিলোঃ মাহবুব উল আলম হানিফ

সানডেসিলেটঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, আগস্ট মাস শোকের মাস, বেদনার মাস। এ মাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারের হত্যা করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ঘাতকরা ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ২৪ জনকে হত্যা করে এবং ৫ শতাধিক মানুষ আহত হয়।

 

এ মাসে দেশের ৬৩টি জেলায় এক সাথে বোমা হামলা করা হয়েছিল। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের হত্যার সাথে জিয়া জড়িত ছিলেন। এর প্রমাণ, তিনি হত্যাকারীদেরকে পুরস্কৃত করেছিলেন। জিয়া মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান ‘জয় বাংলা’ বন্ধ করে দিয়েছিলো। স্বাধীন দেশে রাজাকার শাহ আজিজুর রহমান ও আব্দুল আলিমকে মন্ত্রীত্ব দিয়েছে জিয়া।

জিয়া মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান ‘জয় বাংলা’ বন্ধ করে দিয়েছিলোঃ মাহবুব উল আলম হানিফ

অনেকে বলেন, জিয়াউর রহমান একজন মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু আমি জানি তিনি কোনদিন রনাঙ্গনে মুক্তিযুদ্ধ করেননি। কোন বই পুস্তকেও পাওয়া যায়নি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে যখন পুনঃগঠন করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিক সেই সময় ৭৫ এর ১৫ আগস্ট তাঁকে হত্যা করে জাতিকে কলঙ্কিত করেছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় এনে দেশকে কলঙ্ক মুক্ত করেন।

 

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে তরুণ হাবিবুর রহমান হাবিবকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয় দিয়েছেন। উন্নয়নের স্বার্থে শেখ হাসিনার প্রার্থীকে বিজয়ী করলে উন্নয়ন-অগ্রগতি বেগবান হবে।

রোববার(২২আগস্ট) বিকালে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মাইজগাঁও বাজারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের শাহাদত বার্ষিকী ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেন।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাসিত টুটুলের পরিচালনায় সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন ও কার্যনির্বাহী সদস্য আজিজুস সামাদ ডন, সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব, মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন, হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক কবির উদ্দিন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুহেল, রঞ্জিত সরকার, উপ-প্রচার সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, সদস্য এ.আর সেলিম, সাহিদুর রহমান চৌধুরী জাবেদ, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ নুরুল ইসলাম, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনহার মিয়া চেয়ারম্যান, আমেরিকা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমদ।

 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাজী রইছ আলী, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রাজু আহমদ রাজা, আব্দুল কাদির খান, এবিএম কিবরিয়া, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুর রহমান রুমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা বেগম শ্যামা, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আশফাকুল ইসলাম সাব্বির, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মাশার আহমদ শাহ, যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান বাবেল, ছাত্রলীগ নেতা ফাহিম আহমদ শাহ, মুহিত আহমদ শাহ সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

এর আগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপিসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সিলেট-৩ আসনের এমপি মরহুম মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কবর জিয়ারত করেন ।

 

-সিলেটপ্রতিদিন/রাই

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ