সিলেট-৩ আসন: কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি

প্রকাশিত: ৮:৩০ অপরাহ্ণ, জুন ১১, ২০২১

সিলেট-৩ আসন: কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি

এম আর রাশেদঃ সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে শূন্য  হওয়া আসনে উপ নির্বাচনে কে হচ্ছেন এই আসনের নৌকার মাঝি তা নিয়ে চলছে সিলেটসহ নির্বাচনী এলাকায় তুমুল আলোচনা। গ্রামে-গঞ্জে এ নিয়ে চলছে পক্ষে-বিপক্ষে তর্, যুক্তি উপস্থাপন।তবে তর অবসান হয়ে যাবে কালকে শনিবার (১২জুন)। এদিন  সকালে গনভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা শেষে প্রার্থী ঘোষণা করা হবে।

 

বিষয়টি সানডেসিলেটকে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের  দপ্তর সম্পাদক বিল্পব বড়ুয়া।

 

তিনি বলেন, সিলেট-৩ আসনসহ আরো দুটি সংসদীয় আসনে প্রার্থী নির্ধারণের জন্য শনিবার (১২ জুন) গনভবনে সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড তিনটি আসনে আওয়ামী মনোনয়ন নিয়ে কে নির্বাচনে অংশ নেবেন তা নির্ধারণ করা হবে।

 

এদিকে, সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে শূণ্য হওয়া এ আসনে ১০ জুন শেষ হওয়া আওয়ামী লীগের মনোনয়ন কিনেছেন ২৫ জন নেতা। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় রয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, বার কাউন্সিলের দু’বারের সদস্য অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বিএমএর মহাসচিব  ও সিলেট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম এনামুল হক ছৌধুরী বীরপ্রতিকের ছোট ভাই ডা. ইহতেশামুল হক দুলাল, প্রয়াত সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা চৌধুরী, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও  জেলা পিপি অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক কবির উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ শমসের জামাল, সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাহেদ চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাড. আব্দুর রকিব মন্টু প্রমুখ।

 

দলের বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, প্রাথীদের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে থাকা তিনজনের মধ্যে যে কেউ পেতে পারেন দলীয় মনোনয়ন। তবে নিবার্চনী এলাকার বিভিন্ন জরিপে সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন বনার্ট্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ার সমৃদ্ধ অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ। দীঘদিন ধরে তিনি নিবাচনী এলাকার কাজ করে যাচ্ছেন। গত নিবাচনেও দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন। সিলেটের গ্রুপিং রাজনীতিতে তার কোন গ্রুপ না থাকায় এক্ষেত্রেও এগিয়ে রয়েছেন। দলের কমীদের বিপদে আপদে সবার আগে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজকে পাওয়া যায়। বছর তিনেক আগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার জেলে প্রেরণের দিনেও সিলেটে বিএনপি-জামাতকে রাজপথে প্রতিহত করেছেন ছাত্রলীগ-যুবলীগকে সাথে নিয়ে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

 

নির্বাচনী এলাকার বয়োজেষ্ট কয়েকজনের সাথে আলাপকালে তারা জানান, সিলেট-৩ আসনে যতজন প্রার্থী হয়েছেন তাদের মধ্যে রাজনৈতিক ক্যারিয়ার, দলের বিশ্বস্থতা ও বয়স বিবেচনা করলে শহরতলীর এ গুরুত্বপূর্ন আসনে অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজকেই মনোনয়ন দেয়া উচিত। তবে তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা সবকিছু বিবেচনা করে যে সিদ্ধান্ত দিবেন তৃনমূলের কর্রমী হিসাবে আমরা তা মেনে নিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করতে প্রস্তুত।

 

দলের কয়েকজন নেতাকর্মীর সাথে আলাপ করে জানা যায়, দলীয় মনোনয়ন পেতে পারেন বিএমএর মহাসচিব  ডা. ইহতেশামুল হক দুলাল। দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা নাকি উনাকে এলাকার কাজ করার নিদেশ দিয়েছেন। এজন্য তিনি সহ তার কমী সমথকরা আশাবাদী।

 

এদিকে সদ্য প্রয়াত সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা চৌধুরীও স্বামীর অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে একটি সুন্দর এলাকা গড়ে তুলতে নিবাচন করেত চান।

 

দলীয় নেতাকমীদের প্রত্যাশা, অভিভাবক শূন্য সিলেটের রাজনীতিতে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য, উন্নয় বঞ্চিত এ নিবাচনী এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারেন  দলের এমন পরিক্ষিত, ত্যাগী ও কমীবান্ধব সাবেক কোন ছাত্রনেতাকে সিলেট-৩ আসনে মনোনয়ন দিলে দলের ও জনগণের মঙ্গল হবে।

 

সানডেসিলেট/রাশেদ

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ